-->

বুয়েট ছাত্র আবরারের হত্যাকারীরা নেশাগ্রস্থ ছিলো না, শাস্তি হ্রাসের সুযোগ নেই

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম।
monirul dmp
তিনি বলেন, আবরার হত্যার আসামিরা মদ্যপ ছিলো বলে তদন্তে পাওয়া যায়নি। মদ্যপানের কারণে বা নেশাগ্রস্ত হয়ে তারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে আমাদের তদন্তে মনে হয়নি। আর স্বাক্ষীতেও মদ্যপানের কথা আসেনি। তাই আসামিরা মদ্যপ ছিলো বলে শাস্তি লঘু হবার কোন সুযোগ নাই।
শুক্রবার রাজধানীর তেজগাঁওস্থ বাংলাদেশ ফিল্ম ডেভলপমেন্ট করপোরেশনে (বিএফডিসি) আবরার হত্যাকাণ্ড নিয়ে ইউসিবি পাবলিক পার্লামেন্ট বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যারা জড়িত তাদেরকে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হচ্ছে। যে কক্ষে আবরারকে হত্যা করা হয়েছে সেই কক্ষে সিসিটিভির ফুটেজ না থাকলেও, কারা প্রকৃত অপরাধী তদন্তে তা বেরিয়ে আসবে। যা চার্জশিটে বিস্তারিত উল্লেখ থাকবে।
তিনি বলেন, আবরার হত্যার সময় পুলিশ মূলত তথ্যের অপর্যাপ্ততার বাধার সম্মুখীন হয়েছে। উপযুক্ত তথ্য পেলে পুলিশ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারতো। আবরার কখন প্রাণ হারিয়েছে সে রকমের কোন তথ্যই পুলিশের কাছে ছিল না। বুয়েটে পুলিশ কখন গিয়েছে, কি পদক্ষেপ নিয়েছে সবই চার্জশিটে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলে আবরারকে শিবির সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা করে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনের বিরুদ্ধে চকবাজার থানায় মামলা করেন।

Baca juga

;